আগৈলঝাড়ায় বিয়ের প্রলোভনে নারী শ্রমিকের অবৈধ সম্পর্ক : অতঃপর

খোকন হাওলাদার, বার্তা ডেস্কঃ-
 বিয়ের প্রলোভনে অবৈধভাবে শারিরিক সম্পর্কের কারণে অন্তসত্ত্বা হয়ে পড়েছে আগৈলঝাড়ার কর্মজীবী এক নারী। বিয়ের মর্যাদা না পেয়ে আদালতে মামলা দায়ের করেছেন তিনি। বৃহস্পতিবার বরিশাল নারী ও শিশু নির্যাতন অপরাধ দমন ট্রাইব্যুনালে অন্তসত্ত্বা ওই নারী নিজেই বাদী হয়ে মামলাটি দায়ের করেন। মামলায় আসামী করা হয়েছে, একই উপজেলার চাঁদত্রিশিরা গ্রামের সাহেব বক্তিয়ারের ছেলে শরীফ বক্তিয়ার।

আদালতের বিচারক মামলাটি আগৈলঝাড়ার বাগদা ইউপি চেয়ারম্যানকে তদন্ত পূর্বক অন্তসত্ত্বা নারীর মেডিকেল প্রতিবেদন দাখিলের নির্দেশ দেন। মামলার বরাত দিয়ে আদালতের বেঞ্চ-সহকারী আজিরব রহনাম জানান, ৪ বছর পূর্বে স্বামী সন্তান নিয়ে কাজের সন্ধানে রাজশাহী থেকে আগৈলঝাড়া আসেন ওই নারী। পরে স্থানীয় কালাম হাওলাদারের অটোমেটিক রাইচ মিলে কাজ শুরু করে। কাজের সুবাদে আসামী শরীফের সাথে পরিচয় হয়।

পরিচয়ের পর থেকে বিভিন্ন সময় কু-প্রস্তাবসহ বিয়ের প্রলোভন দেখায় শরীফ। কু-প্রস্তাব অস্বীকার করায় স্বামীসহ তাকে হুমকি দেয়। পরে ওই নারী স্বামী রাজশাহী চলে গেলে ১০ এপ্রিল রাত ১১ টায় বাসায় প্রবেশ করে নারী শ্রমিককে ধর্ষণ করে।

পরে সাদা কাগজে নারীর স্বাক্ষর নিয়ে বিয়ের নাটক সাজায় শরীফ। এরপরে পূনরায় শারিরিক সম্পর্ক শুরু করে। গত ১ আগস্ট শারিরিক সম্পর্ক করতে চাইলে ধর্ষিতা নারী শ্রমিক স্ত্রীর মর্যাদা দিয়ে ঘরে তুলে নিতে বলে শরীফকে। পরে মৌখিকভাবে বিয়ে করবে বলে জানালে ওই রাতেও ধর্ষণ করে শরীফ।

এরফলে ওই নারী ৩ মাসের অন্তসত্ত্বা হয়ে পরে। পরে তিন মাসের অন্তসত্ত্বার বিষয়টি শরীফকে জানালে বিয়ে করতে অস্বীকার করে। এ ঘটনায় বৃহস্পতিবার স্ত্রীর মর্যাদা চেয়ে মামলাটি দায়ের করেন।

No comments

Powered by Blogger.