ধুনটে শ্রেণীকক্ষে ছাত্রীকে প্রচণ্ড পিটুনি

বগুড়া প্রতিনিধিঃ 
২৫ জুলাইবগুড়ার ধুনট উপজেলায় শ্রেণীকক্ষে অনুপস্থিতির কারণে সুমাইয়া আকতার নামে এক শিক্ষার্থীকে মারপিট করেছে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক। এ সময় শিক্ষকের নির্যাতন সইতে না পেরে শ্রেণীকক্ষের পাকা মেঝেতে পড়ে গিয়ে ওই শিক্ষার্থীর ডান হাত ভেঙ্গে গেছে। এ ঘটনায় গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে শিক্ষার্থীর বাবা পাকুড়িহাটা গ্রামের গোলাম রসুল বাদী হয়ে প্রধান শিক্ষককের বিরুদ্ধে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ দিয়েছে।



অভিযোগ ও স্থানীয় সুত্রে জানা যায়, উপজেলার পাকুড়িহাটা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের চতুর্থ শ্রেণীর শিক্ষার্থী সুমাইয়া আকতার সোমবার মধ্যাহ্ন বিরতির পর একটি ক্লাস করে প্রকৃতির ডাকে সাড়া দিতে শ্রেণীকক্ষের বাইরে যায়। এ সময় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল আমিন শ্রেনীকক্ষে প্রবেশ করে সুমাইয়াকে না পেয়ে ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেন। পরে সুমাইয়া শ্রেনীকক্ষে প্রবেশ করলে প্রধান শিক্ষক তাকে না জানিয়ে বাইরে যাওয়ার অভিযোগে মারপিট করতে থাকে। নির্যাতনের এক পর্যায়ে শ্রেণীকক্ষের পাকা মেঝেতে পড়ে গিয়ে সুমাইয়ার ডান হাতের কুনুই ভেঙ্গে গেছে।



এদিকে বিদ্যালয় ছুটির পর সুমাইয়া আকতার বাড়িতে গিয়ে বাবা-মার সহযোগিতায় ওই দিন সন্ধ্যার দিকে ধুনট উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়। এই ঘটনায় শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিচার চেয়ে সুমাইয়ার বাবা উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার নিকট লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন। অভিযোগ পেয়ে উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা কামরুল হাসান তাৎক্ষনিক ভাবে শিক্ষার্থীকে মারপিটের ঘটনায় প্রধান শিক্ষক নুরুল আমিনকে কারণ দর্শানোর নোটিশ দিয়েছে। এছাড়া উপজেলা সহকারী শিক্ষা কর্মকর্তা বিপ্লব দেবনাথকে ২৪ ঘন্টার মধ্যে শিক্ষার্থীর বাবার লিখিত অভিযোগটি তদন্ত করে প্রতিবেদন দাখিলের নিদের্শ দিয়েছে।



এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুল আমিন বলেন, শিক্ষার্থী আহতর বিষয়ে আমি কাউকে কোন কথা বলে বুঝাতে পারবো না। কেউ আমার কথা বিশ্বাসও করবে না। এ ঘটনায় ক্ষমা চাওয়া ছাড়া আর কোন ভাষা আমার জানা নেই। উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার কারণ দর্শানোর নোটিশের জবাব যথাসময়ে দেওয়া হবে। ধুনট উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা (টিও) কামরুল হাসান বলেন, মারপিটে শিক্ষার্থী আহতর খবর পেয়ে তাৎক্ষনিকভাবে প্রধান শিক্ষককে কারণ দর্শানোর নোটিশ দেওয়া হয়েছে। সন্তোষজনক জবাব দিতে না পারলে তার বিরুদ্ধে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

No comments

Powered by Blogger.