গোপালগঞ্জে বঙ্গবন্ধু প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফুটবল খেলা নিয়ে সংঘর্ষে, আহত ২০

এম শিমুল খান, গোপালগঞ্জ প্রতিনিধিঃ 
গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে ফুটবল খেলাকে কেন্দ্র করে ছাত্র ও বহিরাগতদের মধ্যে সংঘর্ষ, দোকানপাট ভাংচুর ও অগ্নিসংযোগের ঘটনা ঘটেছে। এ সব ঘটনায় অন্তত ২০ জন আহত হয়েছে। এর মধ্যে ৫ জনকে গোপালগঞ্জ সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

এ সময় কয়েকটি দোকান ও দুইটি মটর সাইকেল ভাংচুর করে আগুন ধরিয়ে দেয়া হয়। ফায়ার সার্ভিস আগুন নিয়ন্ত্রণ করছে বলে ফায়ার সার্ভিস সূত্রে জানা গেছে। এদিকে, পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করেছে। বুধবার সন্ধ্যা ৭টা থেকে রাত ১০টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস ও আশ পাশের এলাকায় এসব ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, বুধবার বিকেলে বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাসে ছাত্র ও বহিরাগতরা গোবরা গ্রামের যুবকরা ফুটবল খেলছিলো। খেলার এক পর্যায়ে তাদের মধ্যে কথা কাটাকাটি ও হাতাহাতির ঘটনা ঘটে। পরে ছাত্ররা ক্যাম্পাসের পুকুরে গোসল করতে স্থানীয় বহিরাগতরা কয়েকজন ছাত্রকে মারপিট করে। এ খবর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রদের মধ্যে ছড়িয়ে পড়লে ছাত্ররা একত্রিত হয়ে ক্যাম্পাসের বাহিরে সোবহান সড়কে কয়েকটি দোকানে হামলা ও ভাংচুর চালায়।

পরে স্থানীয় গোবরা গ্রামের লোকজন বিশ্ববিদ্যালয়ে মেইন ফটকে অবস্থান নিয়ে ছাত্রদের মারপিট করে। সন্ধ্যা থেকে রাত ১১টা পর্যন্ত উভয় গ্রুপ ধাওয়া-পাল্টা ধাওয়ায় লিপ্ত হয়। এ সময় পুলিশ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে কয়েক রাউন্ড রাবার বুলেট নিক্ষেপ করে। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন প্রত্যক্ষদর্শী জানিয়েছেন, তারা বেশ কয়েক রাউন্ড গুলির শব্দ শুনেছেন।

গোপালগঞ্জ সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো: মনিরুল ইসলাম রাবার বুলেট নিক্ষেপের কথা অস্বীকার করে বলেন, পরিস্থিতি এখন শান্ত। ফায়ার সার্ভিস আগুন নিয়ন্ত্রণে এনেছে। পরিস্থিতি স্বাভাবিক রাখতে এলাকায় অতিরিক্ত পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে।

No comments

Powered by Blogger.