রাজাপুরে আগুন নিভাতে গিয়ে করাত কলের মালিক পক্ষের হামলায় ফায়ার কর্মকর্তা লাি ত

জাকির সিকদার, (রাজাপুর) ঝালকাঠি প্রতিনিধি ||  
ঝালকাঠির রাজাপুরে আগুন নিভাতে এসে ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম লাি ত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার বিকাল ৬টায় উপজেলার পাকাপুল সংলগ্নে করাত কলের সামনে এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় রাজাপুর ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম বাদী হয়ে থানায় অভিযোগ দায়েরের পর একদিন অতিবাহিত হলেও রহস্য জনক কারনে পুলিশ এজাহার রেকর্ড হয়নি। হামলাকারীদের পক্ষে প্রভাবশালী মহল থানা পুলিশ কে ম্যানেজ করায় মামলা রেকর্ডে পুলিশ গড়িমসি করা হচ্ছে বলে নির্ভরযোগ্য সূত্রে জানাগেছে ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা ও স্থানীয়রা জানায়, শুক্রবার বিকাল সাড়ে ৪টায় গালুয়ার হাওলাদার বাড়িতে আগুন লাগলে ভান্ডারিয়ার ফায়ার সার্ভিসের একটি ইউনিট আগুন নিভাতে ঐ এলাকায় আসলে উপজেলার বড় গালুয়ার মৃত আঃ গনি হাওলাদারের ছেলে মোঃ সোহেল হাওলাদারের করাত কলের গাছের ঘুড়ি রাস্তায় ফেলে রাস্তা বন্ধ করে রাখে। রাস্তা থেকে গাছের ঘুরি সড়িয়ে ফায়ার সার্ভিসের গাড়িটি ঘটনা স্থলে পৌছতে পৌছতে ততক্ষনে আগুনে সব পুড়ে ছাই হয়ে যায়। এ সময় ঐ বাড়ির লোকজন তাদের উপর ক্ষিপ্ত হয়।  
আগুন নিভিয়ে ফায়ার সার্ভিস ইউনিটটি সদস্যরা রাজাপুরে ফেরার পথে ঐ করাত কলের সামনে এসে ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা মোঃ নজরুল ইসলাম করাত কলটির মালিকের নাম জানতে চাইলে মিল মালিকের বোন জামাই অবসরপ্রাপ্ত পুলিশ সদস্য আলম ও তার সহযোগীরা তাদের উপর চড়াও হয়ে অকথ্য গালাগাল ও শারীরিক ভাবে লাি ত করে। এ সময় আলমসহ তারা সহযোগীরা সরকারী ফায়ার সার্ভিস বিভাগের গাড়িসহ অন্যান্য কর্মীদের অবরুদ্ধ ও ভাংচুরের চেষ্টা চেষ্টা চালায়। এ সময় স্থানীয় সাধারন মানুষ হামলাকারীদের বাধা দিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।

খবর পেয়ে রাজাপুর থানা পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে ফায়ার সার্ভিস টিমকে উদ্ধার করে থানায় নিয়ে আসে। এসময় ফায়ার সার্ভিসের সাব অফিসার মোঃ নজরুল ইসলাম পুলিশ ও সাংবাদিকদের জানায়, অগ্নিদূর্ঘটনা থেকে জনগনের জানমাল রক্ষা করা দায়িত্ব পালন করতে এসে সকলের ক্ষোভের শিকার হয়ে থাকি যা খুবই কষ্টকর। আগুন নেভাতে দেরীতে পৌছায় দূর্ঘটনার শিকার পরিবারের লোকজন র্দূব্যবহার করে আর রাস্তা আটকে গাছ ফেলে রাখা করাত কল মালিকের নাম জানতে চাইলে মিল মালিকের বোন জামাই আলম আমাদের লাি ত করে।

সে আরো জানায়, শুক্রবার বিকালের ঘটনায় আমাদের বিভাগীয় উর্ধতন কর্মকর্তাদের কাছে অবিহিত করেছি এবং আলম ও তার সহযোগীদের বিরুদ্ধে সন্ধ্যায় রাজাপুর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছি। এখোন আইনগত কি ব্যবস্থা নেয়া হবে বা হবেনা সেটা থানা পুলিশের বিষয়।

 এ ব্যাপারে রাজাপুর থানার ওসি অপারেশন মোঃ শামসুল আরেফিন জানায়, ফায়ার সার্ভিস কর্মকর্তা  লাি ত ও গাড়িসহ অন্যান্য কর্মীদের অবরুদ্ধ করার ঘটনায় শুক্রবার সন্ধ্যায় সাব অফিসার মোঃ নজরুল ইসলাম একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগটি তদন্তাধীন রয়েছে। এ বিষয়ে পরবর্তী আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহন করা হবে।

No comments

Powered by Blogger.