বরিশালে সাদিক আ'লীগের মনোনয়ন পেলে প্রার্থী হবেন না বিএনপির সরোয়ার

খোকন হাওলাদার, বার্তা ডেস্কঃ
বরিশাল সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে বরিশালে এখন আলোচনার কেন্দ্র বিন্দুতে রয়েছে তৃণমূল থেকে শুরু করে মহানগর ও জেলা আওয়ামীলীগ সমর্থিত একক মেয়র প্রার্থী মহানগর কমিটির যুগ্ম সম্পাদক সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহ। কেবল আওয়ামীলীগ কিংবা বিএনপি নয়, সাধারণ মানুষেরও অপেক্ষা এখন ২৩ জুনের। ওইদিন ঢাকায় আনুষ্ঠানিকভাবে দলীয় মেয়র প্রার্থীর নাম ঘোষণা করার কথা রয়েছে ক্ষমতাসীন দলের।

রাজনৈতিক বিশ্লেষক থেকে শুরু করে উভয় রাজনৈতিক দলের নির্ভরযোগ্য একাধিক সূত্রে জানা গেছে, মহানগরীর ৩০টি ওয়ার্ডের সাধারণ ভোটারদের মনজয় করে নেয়া আওয়ামীলীগের মনোনয়ন প্রত্যাশী সাদিক আব্দুল্লাহর মনোনয়ন পাওয়া না পাওয়ার ওপর নির্ভর করছে বিএনপির প্রার্থী নির্ধারন। সূত্রমতে, ভোটের মাঠের জনপ্রিয়তায় উচ্চশিখরে থাকা সাদিক আব্দুল্লাহ নৌকার টিকিট পেলে বিএনপির হেভিওয়েটের নেতা সাবেক মেয়র ও দলের যুগ্ম মহাসচিব এ্যাডভোকেট মজিবর রহমান সরোয়ার মেয়র পদে প্রার্থী হবেন না। অপরদিকে সাদিক আব্দুল্লাহ মনোনয়ন না পেলে সহজভাবে জয় ছিনিয়ে নিতে এখানে বিএনপির মেয়র প্রার্থী হবেন মজিবর রহমান সরোয়ার।

সর্বশেষ গত ১৮ জুন বরিশাল মহানগর আওয়ামীলীগ বর্ধিত সভা করে সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহকে দলীয় মেয়র প্রার্থী হিসেবে আনুষ্ঠানিকভাবে সমর্থন দিয়েছে। পরে মহানগরের এই সিদ্ধান্তের প্রতি একাত্মতা ও পূর্ণ সমর্থন দিয়েছে জেলা আওয়ামীলীগ। মহানগর সভাপতি এ্যাডভোকেট গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল জানান, সাদিক আব্দুল্লাহকে মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন দেয়ার জন্য জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের সিদ্ধান্তের বিষয়টি প্রস্তাবাকারে কেন্দ্রে পাঠানো হয়েছে। ফলে বঙ্গবন্ধু পরিবারের সদস্য সেরনিয়াবাত সাদিক আব্দুল্লাহর মনোনয়ন পাওয়া না পাওয়ার ওপর নির্ভর করছে আওয়ামীলীগের জয়-পরাজয়।

বরিশালে সাদিক আব্দুল্লাহর পাশাপাশি নৌকা প্রতীকে নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চান জেলা পরিষদের সাবেক চেয়ারম্যান আলতাফ হোসেন ভুলু। ১৮ জুন সকালে আওয়ামীলীগ সভানেত্রীর ধানমন্ডির রাজনৈতিক কার্যালয় থেকে আলতাফ হোসেন ভুলু পক্ষে তার পুত্র মনোনয়ন ফরম ক্রয় করেছেন। এছাড়া জেলা আওয়ামীলীগের সহসভাপতি কর্নেল (অবসরপ্রাপ্ত) জাহিদ ফারুক শামীম ও মহানগর আওয়ামীলীগ নেতা মাহমুদুল হক খান মামুন দলীয় মনোনয়ন ফরম ক্রয়ের পর তা পূরণ করে ইতোমধ্যে নিজেরাই জমা দিয়েছেন। আগামী ২২ জুন পর্যন্ত মনোনয়নপত্র বিক্রির পর ২৩ জুন দলের স্থানীয় সরকার নির্বাচন সম্পর্কিত বোর্ড আনুষ্ঠানিকভাবে দলীয় মেয়র প্রার্থীর নাম ঘোষণা করবে।

সূত্রমতে, নৌকার প্রার্থী হয়ে মেয়র নির্বাচনে অংশগ্রহণ করতে চাওয়া এসব প্রার্থীদের মাঠপর্যায়ের নেতাকর্মীদের মধ্যে তেমন কোনো অবস্থান নেই। তৃণমূল পর্যায়ে দল এবং সমর্থন সবকিছুই একচেটিয়াভাবে সাদিক আব্দুল্লাহর নিয়ন্ত্রণে। ভোটের ঘাঁটি বরিশালে বিএনপির প্রায় হাফ ডজন নেতা মেয়র পদে দলীয় মনোনয়ন চাইলেও তারা এখন অপেক্ষায় আছেন আওয়ামীলীগের মেয়র প্রার্থীর নাম ঘোষণার। তবে ইতোমধ্যে রিটার্নিং অফিসারের কাছ থেকে মেয়র প্রার্থী হিসেবে ফরম সংগ্রহ করেছেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক বিলকিস আক্তার জাহান শিরিন।

মহানগর আওয়ামীলীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক সম্পাদক নিরব হোসেন টুটুল বলেন, সাদিক আব্দুল্লাহ মনোনয়ন না পেলে বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের হারানো নগর পিতার চেয়ার ফিরিয়ে আনা কোনোভাবেই সম্ভব হবেনা। কেননা সাদিক মনোনয়ন না পেলে এখানে বিএনপির প্রার্থী হবেন মজিবর রহমান সরোয়ার। আর সাদিক আব্দুল্লাহ মনোনয়ন পেলে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে, সেজন্যই কৌশলী সরোয়ার নিজে প্রার্থী না হয়ে ভোটের দিন নির্বাচন থেকে সরে যাওয়ার ঘোষণা দেয়ার জন্য নামেমাত্র প্রার্থী দিয়ে রাখবেন। নির্বাচন কমিশন ঘোষিত তারিখ অনুযায়ী আগামী ২৮ জুনের মধ্যে প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র দাখিল করতে হবে।

আওয়ামীলীগের মনোনয়ন ফরম নিলেন ৮৬ কাউন্সিলর প্রার্থী ॥ বরিশাল সিটি কর্পোরেশন (বিসিসি) নির্বাচনে আওয়ামীলীগের মনোনয়ন পেতে ৮৬ জন কাউন্সিলর প্রার্থী মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন। এরমধ্যে সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৬৬ জন এবং সংরক্ষিত নারী কাউন্সিলর পদে ২০ জন প্রার্থী ফরম সংগ্রহের পর তা পূরণ করে জমা দিয়েছেন। বুধবার সকালে মহানগর আওয়ামীলীগের সভাপতি গোলাম আব্বাস চৌধুরী দুলাল বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। সূত্রমতে, মহানগর আওয়ামীলীগের বর্ধিত সভায় নগরীর ৩০টি ওয়ার্ডের দলের প্রার্থী হতে ইচ্ছুক সাধারণ কাউন্সিলর ও সংরক্ষিত কাউন্সিলর প্রার্থীদের মনোনয়নের জন্য আবেদন করার নির্দেশ দেয়া হয়। সে অনুযায়ী গত ১৮ জুন রাত থেকে জেলা ও মহানগর আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা পাঁচ হাজার টাকা দলের ফান্ডে জমা দিয়ে মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেন তা পূরণ করে কার্যালয়ে জমা দিয়েছেন। সূত্রে আরও জানা গেছে, এসব মনোনয়ন প্রত্যাশীদের সাক্ষাতকার গ্রহণের পর ২২ জুন ঢাকায় মনোনয়ন বোর্ডে এবং আওয়ামীলীগ কার্যালয়ে তালিকা জমা দেয়া হবে। সেখান থেকে মেয়র পদে নৌকা প্রতীক ও কাউন্সিলর পদে বিভিন্ন প্রতীক বিতরণ করা হবে।

No comments

Powered by Blogger.