বকেয়া বেতন ও ঈদ বোনাসের দাবিতে বরিশাল সিটি মেয়রকে অবরুদ্ধ

খোকন হাওলাদার || 
বকেয়া বেতন, ঈদ বোনাস এবং ২২ মাসের প্রভিডেন্ট ফান্ডের দাবিতে বরিশাল সিটি মেয়র আহসান হাবিব কামালকে তার অফিস কক্ষে অবরুদ্ধ করেছে সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা।


রোববার দুপুর ১২টা থেকে বিকেল সাড়ে ৩টা পর্যন্ত সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা মেয়রের কক্ষে অবস্থান করে তাকে অবরুদ্ধ করে রাখে।

বরিশাল সিটি কর্পোরেশনের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সংগঠন বঙ্গবন্ধু পেশাজীবী পরিষদের শীর্ষ নেতা দিপক লাল মৃধা জানান, কর্মকর্তা-কর্মচারীদের আবারও ৪ মাসের বেতন এবং ২২ মাসের প্রভিডেন্ট ফান্ডের টাকা বকেয়া হয়েছে। ১২টার দিকে মেয়র নগর ভবনে এলে বকেয়া বেতন ও প্রভিডেন্ট ফান্ডের অর্থ এবং ঈদ বোনাস চাইতে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের একটি দল তার কক্ষে যান। তারা বকেয়া বেতন-ভাতা এবং ঈদ বোনাসের দাবি জানান। এ সময় সিটি মেয়র এক মাসের বকেয়া বেতন এবং ঈদ বোনাস দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন।

এ সময় শতাধিক কর্মচারী মেয়রের অফিস কক্ষে প্রবেশ করে অবস্থান নিয়ে বকেয়া বেতন-ভাতার দাবি করতে থাকে। একপর্যায়ে সেখানে হট্টগোলের সৃষ্টি হয়। সেই সঙ্গে অবরুদ্ধ হয়ে পড়েন মেয়র। খবর পেয়ে সাংবাদিকরা সেখানে গেলে তাদের ছবি তুলতে বাধা এবং তাদের সঙ্গে দুর্ব্যবহার করা হয়। পরে কর্মকর্তা-কর্মচারীরা নগর ভবনের তৃতীয় তলায় হিসাব বিভাগে গিয়ে হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তা মশিউর রহমানকে অবরুদ্ধ করে।


কর্মকর্তা-কর্মচারীদের নেতা দিপক লাল মৃধা জানান, তারা হিসাব বিভাগ থেকে ৪ মাসের বকেয়া বেতন, ঈদ বোনাস এবং ২২ মাসের প্রভিডেন্ট ফান্ডের সমপরিমাণ অর্থের চেক প্রস্তুত করে সিটি মেয়র এবং প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে নিয়ে যাবেন। তাদের আশা কর্তৃপক্ষ তাদের বকেয়া পরিশোধ করে দেবেন।

সিটি মেয়র আহসান হাবিব কামাল বলেন, নগর ভবনের কাঙ্ক্ষিত রাজস্ব আদায় হচ্ছে না। তহবিলে অর্থ নেই। এ অবস্থায় মানবিক দিক বিবেচনায় অন্য তহবিল থেকে টাকা ধার এনে ঈদের আগমুহূর্তে কর্মকর্তা-কর্মচারীদের এক মাসের বকেয়া বেতন এবং ঈদ বোনাস দেয়ার কথা বলেছি। কিন্তু কর্মকর্তা-কর্মচারীরা ৪ মাসের বকেয়া বেতন ও ২২ মাসের প্রভিডেন্ট ফান্ড এবং ঈদ বোনাস একসঙ্গে নিতে গেলে কোনটাই পাবেন না তারা।

No comments

Powered by Blogger.