ঢাকা-বরিশাল নৌ রুটের ‘নতুন স্টার’ অ্যাডভেঞ্চার-৯ লঞ্চের উদ্বোধন আজ

খোকন হাওলাদার || 
দেখলে মনে হবে সমুদ্রগামী কোনো বড় জাহাজ! ভেতরে লিফট,জিমনেসিয়াম, প্লে-গ্রাউন্ড, ওয়াইফাই, শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত কেবিনের সুবিধাসহ-কি নেই এতে। বলছি,নৌ-বহরে যোগ হওয়া ঢাকা-বরিশাল নৌ রুটের নতুন জাহাজ ‘এমভি অ্যাডভেঞ্চার-৯ এর কথা। অত্যাধুনিক সুবিধা সম্বলিত এ লঞ্চকে নৌ-পরিবহন খাতের আরেকটি মাইলফলক হিসেবে দেখা হচ্ছে।
৬০ টি শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত ডাবল কেবিন সমৃদ্ধ এ জাহাজ।পাশাপাশি নজর কাড়বে এর অনন্য ইন্টেরিয়র ডিজাইন। এছাড়া বিলাসবহুল অন্য সব সুবিধার কারণে বরিশাল রুটের ‘নতুন স্টার’ বলছেন নৌ পরিবহন খাত সংশ্লিষ্টরা।
৬ জুন বিকেলে অ্যাডভেঞ্চার-৯ লঞ্চটি ঢাকার সদরঘাটে আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন হবে। বিলাসবহুল এ জাহাজ নির্মাণ করেছে মেসার্স নিজাম শিপিং লাইন্সেস। এ কোম্পানির মালিকানাধীন এমভি অ্যাডভেঞ্চার-৫ নামে ছোট আকারের আরেকটি লঞ্চও উদ্বোধন করা হবে। এর মধ্যে এমভি অ্যাডভেঞ্চার-৯ রাত্রিকালীন যাতায়াত করবে। অপর এমভি অ্যাডভেঞ্চার-৫ লঞ্চটি চলবে দিবাকালীন সার্ভিসে। দুটো জাহাজেই সরকার নির্ধারিত ভাড়ায় চলবে।
লঞ্চ দুটোর মালিক মালিক নিজাম উদ্দিন বলেন,তিন তলা বিশিষ্ট অ্যাডভেঞ্চার-৯ এ থাকছে লিফটের ব্যবস্থা। লঞ্চের ভেতরে সুপরিসর হাঁটা চলার জায়গাও রাখা হয়েছে।
তিনি আরও বলেন,‘বিভাগীয় শহর বরিশালের গুরুত্ব বাড়ছে। প্রধানমন্ত্রী পায়রা সমুদ্র বন্দর উন্নয়ন করছেন। এর ফলে দক্ষিণাঞ্চলে যাতায়াত অনেক বাড়বে। আর ব্যবসায়িক দিক থেকেও বরিশাল রুটে এরকম বিলাসবহুল জাহাজের প্রয়োজন রয়েছে।’
ঝালকাঠির কীর্তনখোলা নদীর তীরে নিজস্ব ডকইয়ার্ডে জাহাজ দু‘টি নির্মাণ করা হয়েছে। একই ডকইয়ার্ডে প্রায় এক বছর আগে নির্মিত অ্যাডভেঞ্চার-১ নামে আরেকটি জাহাজ বরিশাল-ঢাকা রুটে চলছে।
৩১০ ফুট দৈর্ঘ্য,৫০ ফুট প্রস্থ চার তলাবিশিষ্ট অ্যাডভেঞ্চার-৯ জাহাজে রয়েছে লিফট,মিনি জিমনেসিয়াম,প্লে-গ্রাউন্ড,ফুডকোর্ট এরিয়া,চিকিৎসা কেন্দ্র ও ফ্রি ওয়াইফাই সুবিধা। এ জাহাজে রয়েছে ৬০টি ডবল ও ৮৫টি সিঙ্গেল কেবিন,একটি ডুপ্লেক্সসহ ৬টি ভিআইপি কেবিন, ৪টি সেমি ভিআইপি,৬টি ফ্যামিলি কেবিন ও ৩০টি স্লিপিং সোফা।
প্রথম শ্রেণি,ভিআইপি কক্ষসহ ডেকের যাত্রীদের জন্য পর্যাপ্ত আলো ও বাতাস নিশ্চিতকরণে তিনটি শক্তিশালী জেনারেটর এবং একটি স্ট্যান্ডবাই জেনারেটর যুক্ত রয়েছে।

No comments

Powered by Blogger.