নাচোলে নলকূপ না বসিয়ে পুরো টাকা আত্মসাৎ




মোঃ মনিরুল ইসলাম, নাচোল(চাঁপাইনবাবগঞ্জ)প্রতিনিধিঃ
চাঁপাইনবাবগঞ্জের নাচোলে বৈদ্যুতিক মোটরচালিত নলকূপ না বসিয়ে পুরো টাকা আত্মসাতের অভিযোগ উঠেছে। আত্মসাৎকারী ব্যক্তিরা হচ্ছেন নাচোল উপজেলা প্রকৌশল অধিদফতরের এসও আব্দুল ওয়াহিদ ও সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার। আত্মসাতের বিষয়টি টের পেয়ে ভুক্তভোগী গ্রামবাসীর পক্ষে আজম প্রতিকার চেয়ে লিখিতভাবে নাচোল উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে অভিযোগ দায়ের করেছেন। এসও আব্দুল ওয়াহিদ সরেজমিন পরিদর্শন না করেই ঠিকাদারকে বিল পরিশোধ করার কথা স্বীকার করেছেন। 

জানা গেছে, ২০১৬-১৭ অর্থবছরে নাচোল উপজেলার বিভিন্ন স্থানে পানির মোটর স্থাপনসহ অন্যান্য কাজের জন্য গতবছর ৪ মে উপজেলা প্রকৌশলীর কার্যালয় থেকে একটি দরপত্র বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ হয়। দরপত্র বিজ্ঞপ্তি নং- ০৪/২০১৬-১৭। স্মারক নং- এলজিইডি/উঃপঃ/নাচোল/২০১৭/৫০৫। বিজ্ঞপ্তি অনুযায়ী উপজেলার ফতেপুর ইউনিয়নের ঘাসুড়া গ্রামের লুৎফল হকের ছেলে আজমের বাড়ির পাশে একটি বৈদ্যুতিক মোটরচালিত নলকূপ বসানোর কথা। কিন্তু সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার নাচোল বনবিভাগ পাড়ার আবদুল কাদের জিলানি কাজ না করেই উপজেলা এলজিইডি অফিসে বিল জমা দেন। নিয়মানুযায়ী এলজিইডি অফিস সরেজমিন প্রকল্প পরিদর্শন করে বিল পরিশোধের কথা। এক্ষেত্রে এলজিইডি অফিস তা না করে সংশ্লিষ্ট ঠিকাদারকে পুরো টাকা পরিশোধ করেছে। অভিযোগ রয়েছে, সংশ্লিষ্ট ঠিকাদার ও নাচোল এলজিইডি অফিসের এসও আব্দুল ওয়াহিদ যোগসাজশ করে ‘কাজ করা হয়েছে’ মর্মে জাল প্রত্যয়ন জমা দিয়ে প্রকল্পের পুরো টাকা আত্মসাৎ করেছেন। এদিকে দীর্ঘ সময় পার হয়ে যাওয়ার পরও কোনো মোটর না বসায় ঘাসুড়া গ্রামের আজম সংশ্লিষ্ট অফিসে খোঁজ নিয়ে জানতে পারেন, মোটর বসানো হয়েছে এবং ঠিকাদার বিল উত্তোলন করে নিয়ে গেছেন। 
আজম বিষয়টির সরেজমিন তদন্ত এবং জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য গত মঙ্গলবার নাচোল উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে লিখিতভাবে অভিযোগ জমা দেন। 
এ বিষয়ে নাচোল উপজেলা প্রকৌশলী মাসুক ই মোহাম্মাদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি মুঠোফোনে বলেন, ‘আজম তার বাড়ির পাশে নলকূপ বুঝিয়ে পেয়েছেন মর্মে একটি প্রত্যয়ন পত্র অফিসের এসও আব্দুল ওয়াহিদের কাছে জমা দিয়েছেন বিধায় ঠিকাদারের বিল পরিশোধ করা হয়েছে।’ তবে সরেজমিন প্রকল্প পরিদর্শন না করে বিল পরিশোধ করা ঠিক হয়নি বলে স্বীকার করে তিনি বলেন, আগামী দুই-এক দিনের মধ্যেই বৈদ্যুতিক মোটরচালিত নলকূপটি যথাস্থানে বসানো হবে। 
নাচোল উপজেলা নির্বাহী অফিসার মুহাম্মদ নাজমুল হক অভিযোগ পাওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, ঘটনাটির তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণ ও দ্রুত প্রতিবেদন দাখিলের জন্য উপজেলা প্রকৌশলীকে নির্দেশ দেয়া হয়েছে।

No comments

Powered by Blogger.