অপু মাত্র একটি কাজের প্রমাণ দিতে পারলে ডিভোর্স বাতিল হবে।





দৈঃ ভোরের কন্ঠ, আনন্দ অশ্রু ডেক্স : ২০১৭  সালের ২২ নভেম্বর অপুকে বিবাহ বিচ্ছেদের চিঠি পাঠান শাকিব খান। গণমাধ্যমে প্রকাশিত হয়, তিন মাস পর কার্যকর হবে বিবাহ বিচ্ছেদ। সেই হিসাবে ২২ ফেব্রুয়ারি শাকিবের বিবহ বিচ্ছেদের চিঠি পাঠানোর তিন মাস পূর্ণ হয়।ঢাকা সিটি করপোরেশনের (অঞ্চল-৩) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হেমায়েত হোসেন বলেন, শাকিব খান যেদিন স্বাক্ষর করেছিলেন, সেদিন থেকে তিন মাস পর কার্যকর হবে ব্যাপারটা এমন নয়। আমরা সিটি করপোরেশন তাদের তিন মাসে তিনবার ডাকব, সেই তৃতীয়বার বিষয়টির ফয়সালা হবে।আজ তৃতীয় ও শেষবারের জন্য তাদের আবারও ডাকা হয়েছে। যদি তারা না উপস্থিত হন, তাহলে নিয়ম অনুযায়ী বিবাহ বিচ্ছেদ কার্যকর হয়ে যাবে।তবে এই তালাক নিয়ে সংশয় এখনো রয়ে গেছে বলে দাবি করলেন হেমায়েত হোসেন। তিনি বলেন, ‘অপু বিশ্বাস দাবি করেছেন শাকিবের আবেদনে যে স্বাক্ষর রয়েছে সেটি শাকিবের নয়। স্বাক্ষরটি শাকিবের কী না 

সেই ব্যাপারে আমরাও নিশ্চিত হতে পারিনি। শাকিব ও তার উকিলকে বেশ কয়েকবার তলব করেও এই ব্যাপারে কোনো সদুত্তর মিলেনি।


এদিকে অপু যদি চ্যালেঞ্জ করেন এবং অপু মাত্র একটি কাজের প্রমাণ দিতে পারলে বাতিল হবে ডিভোর্স এমনই জানান হেমায়েত হোসেন।


তাছাড়া তিনি আরও জানান, একটি ডিভোর্স কার্যকর করার জন্য যেসব তথ্য ও প্রমাণ দরকার তার অনেক কিছুই শাকিব খান প্রদান করেননি। এটা নিতান্তই নির্ভর করছে অপু বিশ্বাসের উপর, তিনি সংসার টিকিয়ে রাখতে চ্যালেঞ্জ বা মামলা করবেন কী না। আর যদি মেনে নেন এই আবেদন, তবে ডিভোর্স কার্যকর হয়ে গেছে।

No comments

Powered by Blogger.