গৌরনদীতে স্বামীর দেয়া আগুনে স্ত্রীর মৃত্যু

খেকন হাওলাদার ||
 মাদক সেবনে বাঁধা দেয়ায় মারধরের একপর্যায়ে কেরোসিন ঢেলে স্ত্রীর শরীরে আগুন লাগিয়ে দিয়েছিলো মাদকাসক্ত স্বামী আলামিন। অগ্নিদগ্ধ হয়ে টানা আটদিন মৃত্যুর সাথে পাঞ্জা লড়ে শুক্রবার রাতে হেরে গেলেন এক সন্তানের জননী সাথী বেগম (২৫)।

ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় সাথী মৃত্যুবরন করেছেন। সে (সাথী) জেলার গৌরনদী পৌর এলাকার কাছেমাবাদ মহল্লার বাসিন্দা আলামিন শিকদারের স্ত্রী। স্থানীয় একাধিক সূত্রে জানা গেছে, বিষয়টি ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার জন্য প্রভাবশালী একটি মহল আলামিনের পক্ষালম্বন করে থানা পুলিশকে ম্যানেজ করার জন্য মরিয়া হয়ে উঠেছে।

সূত্রমতে, ওই মহল্লার মান্নান শিকদারের পুত্র আলামিন শিকদারকে দীর্ঘদিন থেকে মাদক সেবন করে আসছিলো। গত ১৮ মে রাতে মাদক সেবনে বাঁধা প্রদান করে তার স্ত্রী সাথী বেগম। এনিয়ে বাগ্বিতন্ডার একপর্যায়ে মাদকাসক্ত আলামিন তার স্ত্রী সাথী বেগমকে অমানুষিক নির্যাতন করায় সে (সাথী) জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। পরবর্তীতে আলামিন তার স্ত্রীর শরীরে কেরোসিন ঢেলে আগুন লাগিয়ে দেয়। এসময় সাথীর চিৎকারে প্রতিবেশীরা এগিয়ে এসে মুর্মূর্ষ অবস্থায় উদ্ধার করে প্রথমে গৌরনদী হাসপাতালে ও তাৎক্ষনিক বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে ভর্তি করেন।

গৃহবধূ সাথী বেগমের মা উজিরপুর উপজেলার খেয়াঘাট সংলগ্ন এলাকার গুচ্ছগ্রামের বাসিন্দা ফোকরন নেছা জানান, ১৯ মে সন্ধ্যায় উন্নত চিকিৎসার জন্য শেবাচিমের চিকিৎসকেরা সাথীকে ঢাকা মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করেন। গৌরনদী মডেল থানার ওসি (তদন্ত) মোঃ আফজাল হোসেন জানান, এ ঘটনায় সাথীর মা বাদি হয়ে ১৯ মে বিকেলে থানায় মামলা দায়েরের পর পুলিশ তাৎক্ষনিক অভিযান চালিয়ে আলামিন শিকদারকে গ্রেফতার করে আদালতের মাধ্যমে জেলহাজতে প্রেরন করেছে।

No comments

Powered by Blogger.